মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
পাতা

সাধারণ তথ্য

 উদ্দেশ্যাবলীঃ  
১। গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশের সংবিধান ও নীতি-আদর্শের প্রতি যুবদের মাঝে সচেতনতা ও শ্রদ্ধাবোধ সৃষ্টি এবং একই সাথে যুবদের মধ্যে নৈতিক মূল্যবোধ, দেশপ্রেম ও সামাজিক দায়িত্ববোধ জাগ্রত করে সুনাগরিক হিসেবে গড়ে তোলা।
২। যুবদের ক্ষমতায়ন, কর্মসংস্থানের সুযোগ ও উদ্যোক্তা সৃষ্টির লক্ষ্যে যথোপযুক্ত বাস্তবমূখী শিক্ষা ও দক্ষতা বৃদ্ধিমূলক প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা।
৩। স্থানীয় সম্পদের সুষ্ঠু ব্যবহার ও ঋণ প্রদানের মাধ্যমে আত্মকর্মসংস্থানের প্রতি যুবদেরকে বিশেষ করে বেকার যুবদেরকে উৎসাহিত করা ও তাদের অন্তর্নিহিত সকল সম্ভাবনাময় গুণাবলী বিকাশের অনুকূল পরিবেশ সৃষ্টি করা।
৪। জাতীয় উন্নয়নের মূলধারার সাথে অংশীদার হিসেবে সম্পৃক্ত হওয়ার মত যুবদেরকে পড়ে তোলা।
৫। গৌরবময় সকল ঐতিহ্য ও মূল্যবোধের প্রতি সচেতনতাসৃষ্টিসহ যুবদেরকে নৈতিক অবক্ষয় ও বিপথগামিতা থেকে রক্ষা করে নৈতিক ও সমাজ গঠনমূলক কাজে সম্পৃক্ত করা এবং অপরাধমূলক সকল কার্যক্রম থেকে যুবদেরকে নিবৃত্ত রাখার পরিবেশ সৃষ্টি করা।
৬। স্বেচ্ছাসেবা কার্যক্রমে উৎসাহিত হওয়ার জন্য যুবদেরকে সহায়তা করা এবং জাতীয় সেবামূলক বিভিন্ন কাজে যেমন : ঠিকাদান, বৃক্ষরোপণ, এইডস ও মাদক দ্রব্যের অপব্যবহার প্রতিরোধ এবং পুনর্বাসন ইত্যাদি কাজে যুবদের সম্পৃক্ত করা।
৭। সাহিত্য, সংস্কৃতি, খেলাধুলাসহ সুস্থ বিনোদনমূলক সকল কার্যক্রমে যুবদের অবদান রাখার ও অংশগ্রহণ করার সুযোগ সৃষ্টি করা এবং এ ব্যাপারে সকল প্রকার পৃষ্ঠপোষকতা প্রদান করা।
৮। তথ্য-প্রযুক্তির ক্ষেত্রে বিশ্বে যে অভূতপূর্ব অগ্রগতি সাধিত হয়েছে এর সাথে কার্যকরভাবে সম্পৃক্ত হওয়ার সকল সুযোগ সৃষ্টিতে সহায়তা প্রদান করা।
৯। যুব বিষয়ক তথ্য ও গবেষণা কেন্দ্র পরিচালনার মাধ্যমে যুব সংশি্নষ্ট তথ্যাদির প্রাপ্তির অবাধ সুযোগ নিশ্চিত করা।
১০। গ্রামীন পর্যায়ে আধুনিক সুযোগ সুবিধা সৃষ্টি করে যুবদের যোগ্যতা ও দক্ষতার সাথে যথ্যেপযুক্ত উৎপদানমূখী কর্মসূচি বাস্তবায়ন করা।

১১। জাতীয় উন্নয়ন কর্মকান্ডকে অধিকতর গতিশীল করার লক্ষ্যে উন্নয়নের সকল স্তরে এবং সিদ্ধান্ত গ্রহণ প্রক্রিয়ায় যুবক ও যুব মহিলাদের সমহারে অংশগ্রহণের সুযোগ সৃষ্টি করা।
১২। যুবদের স্বাস্থ্য, মানবাধিকারসহ প্রতিবন্ধী যুবদের সামাজিক অধিকার সহায়ক প্রশিক্ষণ প্রদান করা। দেশের ভবিষ্যৎ রাজনৈতিক, সামাজিক ও অর্থনৈতিক নেতৃত্বের দায়িত্ব গ্রহণের লক্ষ্যে যুবদের মাঝে নেতৃত্বের গুণাবলীর বিকাশ সাধনে বিশেষ কার্যক্রম গ্রহণ করা।

 

ঋণ কার্যক্রম

     ১. আত্মকর্মসংস্থান ঋণ

ক) ঋণ প্রাপ্তির যোগ্যতা :

যুব উন্নয়ন অধিদপ্তর হতে প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত এবং প্রকল্প গ্রহন কারী যে কোন যুবক/যুব মহিলা এ ঋণ পাবে। 

     বয়স

 

১৮ হতে ৪০ বৎসর হতে হবে।

খ) ঋণের পরিমাণ

 

১। প্রতিষ্ঠানিক ঋণ যাহা জেলা কমিটি কর্তৃক অনুমোদন দেয়া হয়।

টাকার পরিমাণ ৩০,০০০ হতে ৫০,০০০/- টাকা পর্যন্ত।

২। অপ্রাতিষ্ঠানিক ঋণ যাহা উপজেলা যুব ঋণ কমিটি কর্তৃক অনুমোদ দেয়া হয়।

টাকার পরিমাণ ১৫,০০০/- হতে ২৫,০০০/- পর্যন্ত।

গ) ঋণ পরিশোধের নিয়ম

 

১। ঋণ গ্রহণের পর ৩(তিন) মাস প্রেস পিরিয়ড ৪র্থ মাস হতে প্রতি মাসে মাসিক কিস্তিতে,

মোট ২৪ কিস্তিতে ঋণপরিশোধ করতে হবে।

 ঘ) ঋণ গ্রহণের নিয়ম

 

১। ঋণ গ্রহণের সময় ঋণীকে ২জন জামিনদার দিতে হবে।

২। জামিনদারের নিম্ন বর্ণিত কাগজপত্র ঋণের আবাসনের সাথে জমা  দিতে হবে।      

ক) জামিনদারের জায়গা/জমির দলিল।                

খ) জমিনের খতিয়ান।                                   

গ) হাল নাগাদ খাজনা রশিদ।                            

ঘ) ৩ কপি ছবি।

ঙ) সরকারি কর্মকর্তা/কর্মচারী হয় তা হলে জমির দলিলের প্রয়োজন হবে না। সে ক্ষেত্রে সরকারি কর্মকর্তা/কর্মচারীর উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের প্রত্যয়ন পত্র জমা দিতে হবে।

ঙ) ঋণের সার্ভিস চার্জের পরিমাণ

 

৫%। তবে খেলাফীর ক্ষেত্রে ১০%।

 

২. পরিবার ভিত্তিক ঋণ

(ক) ঋণ প্রাপ্তির যোগ্যতা

 

১৫ হতে ৪০ বৎসর যে কোন যুবক/যুব মহিলা এ ঋণ পাবে।

(খ) ঋণ প্রদানের নিয়ম

 

৪০ হতে ৫০ জন সদস্য নিয়ে একটি কেন্দ্র গঠন করা হয়। কেন্দ্রে ১জন কেন্দ্র প্রধান,

১জন কেন্দ্র সচিব থাকেন।

গ) ঋণের পরিমাণ

 

১ম দফায়- ৮,০০০, ২য় দফায় ১০,০০০/-  ৩য় দফায়- ১২,০০০, ৪র্থ দফায়- ১৪,০০০/-

ঋণ প্রদান করা হয়।

ঘ) ঋণ পরিশোধের মেয়াদ

১ বৎসর

ঙ) ঋণ পরিশোধের নিয়ম

 

সাপ্তাহিক কিস্তিতে এ ঋণ পরিশোধ করা হয়। ৫০ কিস্তিতে আসল এবং ২ (দুই) কিস্তির

সার্ভিস চার্জসর্বমোট ৫২ কিস্তিতে এ ঋণ আদায় করা হয়।

চ) ঋণের সার্ভিস চার্জের হার

৫%। তবে খেলাফীর ক্ষেত্রে ১০%।